বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ এপ্রিল ২০১৬

ইনমাস,কলাতলি ,কক্সবাজার

 


কক্সবাজারে অঞ্চলের বৃহৎ জনগেীষ্ঠিকে নিউক্লিয়ার মেডিসিন সেবা প্রদান করার জন্য ২০১৩ সালের ৩রা সেপ্টেম্বর থেকে ইনমাস, কক্সবাজার আনুষ্ঠানিক ভাবে যাত্রা শুরূ করে ।

সমুদ্র সৈকতের অনতিদূরে কলাতলি সড়কের র্পযটন এলাকায় নয়ানাভিরাম পরিবেশে এই কেন্দ্রটির অবস্থান ।

 

ইনমাস,কক্সবাজার এর লক্ষ্য,উদ্দশ্যে ও ভবষ্যিৎ পরকিল্পনাঃ​

 
রূপকল্পঃ

পরমাণু শক্তির  শান্তিপূর্ণ ব্যবহাররে মাধ্যমে সার্বিক আর্থ-সামাজকি উন্নয়নে অবদানরে লক্ষ্যে পারমাণবকি বজ্ঞিান ও প্রযুক্তরি অগ্রগতি সাধন দ্বারা আত্মনির্ভরশীলতা র্অজন। পরমাণু শক্তির নিরাপদ ও শান্তপরিপূর্ণ ব্যবহাররে মাধ্যমে সবো পরচিালনা।

অভিলক্ষ্যঃ

১ । পারমাণবকি বজ্ঞিান ও প্রযুক্তিনির্ভর মৌলকি, ব্যবহারকি ও উন্নত গবষেণা কর্মসূচীর অগ্রগতি সাধন​

২। স্বাস্থ্য এবং পরবিশে ক্ষেত্রে পরমাণু প্রযুক্তরি প্রয়োগ

৩। পারমাণবিক বজ্ঞিান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়ন

৪। বিকিরণজনিত নিরাপত্তা চর্চা

 

উদ্দেশ্যসমূহঃ

(ক) পরমাণু শক্তির নিরাপদ ও শান্তপরিপূর্ণ ব্যবহার নিশ্চিতকরণ
(খ)  চিকিৎসা সেবায় পরমাণু প্রযুক্তির ব্যবহার সম্প্রসারণ
(গ)  বজ্ঞিান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে গবেষণা সক্ষমতা বৃদ্ধি
(ঘ)  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রসারে অবকাঠামো উন্নয়ন
(ঙ)  উদ্ভাবন ও অভিযোগ প্রতিকারের মাধ্যমে সেবার মানোন্নয়ন
(চ)  দক্ষতা ও নৈতিকতার উন্নয়ন
(ছ)  তথ্য অধিকার ও স্বপ্রণোদিত তথ্য প্রকাশ বাস্তবায়ন
(জ)  আর্থিক ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন

 

বিগত বছর সমূহের তুলনামূলক চিত্র ও ভবিষ্যত পরিকল্পনাঃ​

সাম্প্রতিক বছরসমূহের (৩ বছর) প্রধান র্অজনসমূহঃ

১। প্রতিষ্ঠানের গোড়াপত্তন।
২। রোগীদের সেবাদান।
৩। বৈজ্ঞানিক ও জনসচেতনতামূলক সেমিনার।
৪। কেন্দ্রের সেবা পরিধি উত্তরোত্তর বৃদ্ধি।

 

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাঃ
 
১। কেন্দ্রের প্রচার ও প্রসার বৃদ্ধি ।
২। উপজেলা হাসপাতাল ও সদর হাসপাতালের চিকিৎসকদের সাথে মত বিনিময়।
৩। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে থাইরয়েড ক্লিনিক পরিচালনা।
 
২০১৫ - ১৬ অর্থবছরের সম্ভাব্য প্রধান র্অজনসমূহঃ
 
১। কেন্দ্রে রোগী ও উপার্জন বৃদ্ধি ।
২। বৈজ্ঞানিক সেমিনার আয়োজন।
৩। বৈজ্ঞানিক নিবন্ধ প্রকাশ।
৪। কেন্দ্রের সেবার মান বৃদ্ধি।
৫। নিয়মিত জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রম ( যেমন স্কুল ক্যাম্প, থাইরয়েড ক্লিনিকের আয়োজন। )
 
সেবা সমূহ

হরমোন পরিক্ষাঃ বর্তমানে আমরা (ইনমাস,কক্সবাজার) থাইরয়েড হরমোন ও থাইরোগ্লোবিউলিন এর মাত্রা পরিক্ষা করছি । অদূর ভবিষ্যতে অন্যান্য সব হরমোন ও ক্যান্সার মার্কার নির্ণয়ের পরীক্ষা সমূহ করার পরিকল্পনা রয়েছে ।

নিউক্লিয়ার মেডিসিন ইমেজিঃ আমরা(ইনমাস,কক্সবাজার) র্বতমানে  থাইরয়েড, হাড় এবং কডিনী   সংক্রান্ত রোগের রডিওনিউক্লাইড স্ক্যান করছি। খুব অল্প সময়ের মধ্যই শরীররে অঙ্গ প্রত্যঙ্গের রোগের স্ক্যান সংযোজন করতে যাচ্ছি ।

আল্ট্রাসনোগ্রামঃ আমরা নিয়মিত সাধারণ, কালার ডপলার, ৪উ ও ঞঠঝ আল্ট্রাসাউন্ড সবো প্রদান করছি ।

থাইরয়েড ক্লনিকিঃ আমরা (ইনমাস,কক্সবাজার) এখন সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত, সকল কার্যদিবসে একটি পূর্ণাঙ্গ থাইরয়েড ক্লিনিকের মাধ্যমে থাইরয়েড রোগীদের ওয়ান স্টপ ডায়াগনষ্টিক থেরাপিউটিক পরিষেবা এবং চিকিৎসা পরামর্শ প্রদান করছি।
 
 
যন্ত্রপাতি ও বৈজ্ঞানিক সরঞ্জামঃ

১। দুটি সর্বাধুনিক আল্ট্রাসনোগ্রাম মেশিন
২। দুটি সর্বাধুনিক মডেলের গামা ক্যামেরা
৩। একটি ডডিকেটেডে থাইরয়েড স্ক্যানার।
৪। একটি মানসম্পন্ন রেডিওইমিউনো অ্যাসে (আর.আই.এ.) ল্যাব।
 
 
ইনমাস,কক্সবাজার এর আয়-২০১৫ইং​ঃ
 
 
ইনমাস,কক্সবাজার এর রোগীর সংখ্যা-২০১৫ইং​ঃ
 
 
ইনমাস,কক্সবাজার এর আয়-২০১৬ইংঃ​
 
 
ইনমাস,কক্সবাজার এর রোগীর সংখ্যা ২০১৬ইং​
 
 
ইনস্টিটিউট এ বর্তমানে নিম্নলিখিত জনশক্তি কর্মরত আছেঃ

১। একজন মূখ্য চিকিৎসা কর্মকর্তা (পরিচালক)
২। একজন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা
৩। একজন বৈজ্ঞানিক সহাকারী
৪। একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা
৫।ম একজন হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা
৬।  প্রকল্পকাল শেষ হওয়ায় ধারাবাহিকভাবে -০৩ জন প্রকল্পে কর্মরত ও বাকী -১৩ জন দৈনিক ভিত্তিক হিসাবে কর্মরত আছে।
 
 

Share with :